চ্যাঞ্জিং রুমে এই তিন মেয়ে একি কান্ড ঘটালো-ভিডিও

Loading...

কিছুদিন আগে একটি শপিং মলে মহিলাদের চেঞ্জিং রুমে গোপন ক্যামেরা থাকার অভিযোগ ওঠে। সেই অভিযোগের ভিত্তিতে গ্রেফতারও করা হয় মলের কর্মীকে। শুধু একটি বা দুটি জায়গায় নয়, এই অভিযোগ বিশ্বের বিভিন্ন শপিং মলেই উঠেছে একাধিকবার।
এসব বিষয়ে বেশ আলোচনাও হয়। তবে কিছুদিন পর এটা থাকে না। সরকারি ভাবে এই ধরনের ঘটনা বন্ধ করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

তবে সেদিন একটি শপিং মলের ঘটনা। কয়েকটি জামা হাতে নিয়ে ট্রায়াল রুমে ঢোকেন এক যুবক। ট্রায়াল দেওয়ার পর বেরতে গিয়ে সোজা মহিলাদের চেঞ্জিং রুমে হঠাত্‍ই ঢুকে পড়েন তিনি। সেই সময় ৪ জন তরুণী সেখানে পোশাক পরিবর্তনে ব্যস্ত ছিলেন। তাকে দেখে রীতিমতো চিৎকার করে ওঠেন ওই তরুণীরা।

মুহূর্তের মধ্যে সেখান থেকে দরজা বন্ধ করে বেরিয়ে আসেন তিনি। ফের বেরতে গিয়ে একই অবস্থা। লজ্জায় ও ভয়ে কিছু সময় অপেক্ষা করার পর সেখান থেকে ফের দরজা খোলা মাত্রই দেখতে পান সেই মলের ফ্লোর।তবে, তখনও কিছুটা ভয় থাকলেও এটা বঝতে পারেন যে তাকে বোকা বানানো হয়েছে। আসলে ওটা ছিল একটি অস্থায়ী সেট।
ভিডিওটি দেখতে নিচে ক্লিক করুন-

বি: দ্র : ই্উটিউব থেকে প্রকাশিত সকল ভিডিওর দায় সম্পুর্ন ই্উটিউব চ্যানেল এর ।

এর সাথে আমরা কোন ভাবে সংশ্লিষ্ট নয় এবং আমাদের পেইজ কোন প্রকার দায় নিবেনা।
ভিডিওটির উপর কারও আপত্তি থাকলে তা অপসারন করা হবে। প্রতিদিন ঘটে যাওয়া নানা রকম ঘটনা আপনাদের মাঝে তুলে ধরা এবং সামাজিক সচেতনতা আমাদের লক্ষ্য এবং উদ্দেশ্য ।

আরোও পড়ূনঃ-

কিভাবে খুন করা হয় সালমান শাহ কে? সামিরার সাথে কে এই লোক? অবশেষে জানা গেলো সকল রহস্য …

কিভাবে খুন করা হয় সালমান শাহ কে – বছরের পর বছর পার হয়ে গেলেও ঢাকাই ছবির তারকা অভিনেতা সালমান শাহের মৃত্যুরহস্য উৎঘাটন হয়নি। জল্পনায় পার হওয়া এতগুলো বছর পার হওয়ার পর এক ভিডিওবার্তা সালমান ভক্তদের বিচার পাওয়ার নতুন স্বপ্ন দেখাচ্ছে।

রাবেয়া সুলতানা রুবি নামে যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী এক বাংলাদেশি সালমানের মৃত্যুর রহস্য জানিয়ে একটি ভিডিওবার্তা দিয়েছেন। সেখানে তিনি বলেছেন, সালমান শাহ্‌ আত্মহত্যা করে নাই, সালমান শাহ্‌ খুন হয়েছে। বর্তমানে ভিডিওটি অনলাইনে ভাইরাল হয়ে গিয়েছে।

ভিডিওবার্তায় রুবি বলেছেন, ‘আসসালামুয়ালাইকুম, সালমান শাহ্‌ আত্মহত্যা করে নাই, সালমান শাহ্‌ খুন হইছে। আমার হাজব্যান্ড এটা করাইছে আমার ভাইকে দিয়ে। এটা সামিরার ফ্যামিলি করাইছে। সব চাইনিজ মানুষ। সালমান শাহ্‌ আত্মহত্যা করে নাই, সালমান শাহ্‌ খুন হইছে।

আমি রুবি এখানে ভেগে আছি। এই কেস যেন না শেষ হয়। আমি যেভাবে পারি, আমি যেন ঠিকমতো সাক্ষী দিতে পারি। আপনারা আমার জন্য দোয়া করেন। আমাকে খুন করার চেষ্টা করা হচ্ছে। দয়া করে আমার জন্য দোয়া করেন। আমি ভালো নাই। আমি কি করবো আমি জানিনা।

এতটুকু জানি, সালমান শাহ্‌ ইমন আত্মহত্যা করেনি। ইমনকে সামিরা, আমার হাজব্যান্ড ও সামিরার সমস্ত ফ্যামিলি সবাই মিলে খুন করছে। প্লিজ দয়া করে কিছু করেন। এরা কি মানুষ, পুরা চাইনিজ কমিউনিটি আপনারা জানেন না। আমি পুরা ভেগে আছি এখানে। দয়া করে একটুখানি কাউকে জানান। এটা আত্মহত্যা না, এটা খুন।

আমার ছোট ভাই রুমিকে দিয়ে খুন করাইছে। রুমিকেউ খুন করা হইছে। আমি জানিনা রুমির কবর কোথায় আছে। কবর থেকে রুমির লাশ তুলে যদি ঠিকমতো আবার পোস্টমার্টেম করে দেখা যাবে, ওরে গলা টিপে মেরে ফেলছে।

এরমধ্যে আমার খালু মুমতাজ হাসান আছে, আমার খালাতো ভাই জুম্মা থাকতে পারে, আমার হাজব্যান্ড চ্যান লিন চ্যান (জন চ্যান নামে বাংলাদেশে পরিচিত) আছে। আমার স্বামী সাংহাই চাইনিজ রেস্টুরেন্টের মালিক ছিলো। ধানমণ্ডি ২৭ নাম্বার রোডে।

দয়া করে কাউরে জানান, আমি ভেগে আছি। আমি লাস্ট মানুষ যে কিনা জানে এটা খুন। আমি এটা প্রমাণ করতে পারবো ইনশাআল্লাহ। দয়া করে একটু সাহায্য করেন। এই সাংঘাতিক অবস্থায় এরা আমাকে বাসার মধ্যে খুন করার প্ল্যান করেছিলো। কিন্তু তারা সুযোগ পায় নাই।

আমার জামাইকে আমি জিজ্ঞাস করেছিলাম, তুমি আমাকে খুন করতে চাও? ও বলছে, ‘খুন করলে তো তরে আমি কবেই খুন করতাম।’ কিন্তু এখন আমাকে খুন করতে চায়। কারণ এখন আবার কেস ওপেন হইছে। প্লিজ দয়া করে কিছু করেন।

নীলা ভাবি আপনার ছেলেকে খুন করা হইছে। আমার যা করার আমি করবো। আমি ভেগে আছি ভাবি। না হলে আমাকেও মেরে ফেলতো।

লুসি, আমার হাজব্যান্ড জন সবাই মিলে আমার বাচ্চা ভিকি ও আমার জানের ওপর…(কান্না) অনেক জিনিস আছে ভাবি। দয়া করে কিছু করেন ভাবি। কিছু করেন, কিছু করেন।

ইনভেস্টিগেশন করেন, এটা খুন ছিলো। ইমন আত্মহত্যা করে নাই। সালমান শাহ্‌ আত্মহত্যা করে নাই। আপনার ছেলে আত্মহত্যা করে নাই। আপনার ছেলেকে খুন করা হইছে। আসসালামুয়ালাইকুম আবার। আল্লাহ হাফেজ। বেঁচে থাকলে ইনশাআল্লাহ দেখা হবে।’