৬ বছর ৮ মাস বয়সে পবিত্র কোরআনের হাফেজ

Loading...

আলাচারিতায় আদিবা জানায়, আমি কোরআন পড়া শুরু করি আম্মার কাছে। পরে বাসার পাশে আল মাদরাসাতু দ্বীনিয়া লিল বানাত মাদানি নগরে ভর্তি হই। সেখানে সবক শোনাই। কিন্তু মুখস্থটা করি বাসায় আম্মার কাছেই। মাদরাসার শিক্ষিকার কাছে কিছুদিন শুনিয়ে চলে আছি মারকাজুত তাহফিজ ইন্টারন্যাশনাল মাদরাসায়।

এই মাদরাসায় হাফেজ রহমতুল্লাহ ও হাফেজ নেছার আহমাদ আন নাছিরীর কাছে নিয়মিত কোরআন শোনাতে থাকি।

আদিবার শিক্ষক হাফেজ রহমতুল্লাহ বাংলানিউজকে জানান, আদিবা দৈনিক ৪-৫ পারা করে কোরআন শুনিয়েছে।

আদিবা ২০১৬ সালে এটিএন বাংলা আয়োজিত রিয়েলিটি শো’তে ১ম স্থান অর্জন করে।

তার এই অসাধারণ কীর্তির দরুন ইসলামিক ফাউন্ডেশন ২০১৬ সালের ২৫ অক্টোবর তাকে সংবর্ধনাও দিয়েছে। ওই সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে ধর্ম মন্ত্রী অধ্যক্ষ মতিউর রহমান, প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা গওহর রিজভী উপস্থিত ছিলেন। তারা আদিবার তেলাওয়াত শুনে অভিভূত হন।

নখ কামড়ে কামড়ে কথা বলা আদিবা জানায় কোরআন পড়তে আমার ভালো লাগে। ভবিষ্যতে আরও সুন্দর করে কোরআন পড়তে চাই। বড় হয়ে কী হতে চাও এ প্রশ্নে তার কথা