ভারতে ২১ জন মিলে বাংলাদেশি এক কিশোরীকে গণধর্ষণের অভিযোগ

Loading...

এবার বাংলাদেশি এক কিশোরীকে গণধর্ষণের অভিযোগ উঠল ভারতের আহমেদাবাদ ও জুনাগড়ের মাংরোল শহরে। ১৪ বছর বয়সী ওই কিশোরীর অভিযোগ গত সপ্তাহেই দুই বার গণধর্ষণ করা হয়।

গতকাল শনিবার (১৮ মার্চ) থানায় গণধর্ষণের অভিযোগ করে ওই কিশোরী। তার অভিযোগের ভিত্তিতে মাংরোল পুলিশ তদন্ত শুরু করেছে।

সূত্রের খবর অনুযায়ী, গত বৃহস্পতিবার মাংরোলের একটি বার্স টার্মিনালে ওই কিশোরীকে একা কাঁদতে দেখে স্থানীয়রা এগিয়ে আসে। এরপর তাকে জিজ্ঞসাবাদ করা হলেও ভাষাগত সমস্যার কারণে স্থানীয়রা কিছুই বুঝতে না পারায় ওই কিশোরীকে স্থানীয় পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া হয়। এরপর ইন্টারপ্রেটারের সহায়তায় জানা যায় ওই কিশোরীকে কাজের লোভ দেখিয়ে বাংলাদেশ থেকে ভারতে নিয়ে আসা হয়। পরে আহমেদাবাদ হয়ে মাংরোলের এসে পৌঁছায় ওই কিশোরী।

 

গত এক সপ্তাহে দুই বার তাকে গণধর্ষণের শিকার হয় বলে পুলিশের কাছে অভিযোগ করে ওই কিশোরী। একবার আহমেদাবাদে সাত জন পুরুষ মিলে তাকে গণধর্ষণ করে, দ্বিতীয়বার মাংরোলে ১৪ জন মিলে তাকে গণধর্ষণ করে। সে আরও জানায়, বাংলাদেশ সীমান্ত লাগোয়া পশ্চিমবঙ্গের বনগাঁর বাসিন্দা সাই নামে এক ব্যক্তির কাছে তাকে বিক্রি করে দেয় তারই এক আত্মীয়। এরপরই হাত ঘুরে সে আহমেদাবাদে এসে পৌঁছায়। বর্তমানে ওই বাংলাদেশি কিশোরীকে রাখা হয়েছে একটি নারী হোমে।